শিরোনাম
  ছাতকে কলেজ ছাত্র হত্যা মামলায় তিন সহপাঠীর যাবজ্জীবন       ধর্মপাশার ঘুলুয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভোটকেন্দ্রটি পরিদর্শন করলেন জেলা প্রশাসক       শাল্লার নোয়াগাঁওয়ে তান্ডব: আত্মসমর্পণকারী ৪৯ জন কারাগারে       জামালগঞ্জ সদর ইউপি চেয়ারম্যান সাজ্জাদ মাহমুদ সাময়িকভাবে বরখাস্ত       ধর্মপাশায় ভোট কেন্দ্র থেকে চারদিন পর ব্যালট পেপার উদ্ধার       দোয়ারাবাজারে খাল ভরাট করে আশ্রয়ন প্রকল্পের ঘর নির্মাণের প্রতিবাদে মানববন্ধন       সুনামগঞ্জে ১৮ ইউনিয়নের ১১টিতেই নৌকার ভরাডুবি       সিলেট বিভাগে নৌকার প্রথম নারী চেয়ারম্যান সুনামগঞ্জের দীপা       গ্রামীণ রাস্তাঘাটের উন্নয়নে সরকার খুব বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে -হুইপ পীর মিসবাহ       জগন্নাথপুরে সিএনজি ও ট্রাক্টরে মুখোমুখি সংর্ঘষে নিহত ২    


দিরাই প্রতিনিধি: দু’চোখে আলো নেই। মনোজ্ঞান ও ইচ্ছেশক্তি দিয়েই চলছে জীবন যুদ্ধ। চোখে না দেখেও প্রায় একযুগ ধরে বাঁশ বেতের বিভিন্ন জিনিসপত্র তৈরি করে চলছে মৃত্যুঞ্জয় বিশ্বাস (৩০)-এর সংসার। মৃত্যুঞ্জয় আপন হাতে যতœ নিয়ে বুনে চলেছেন কুলা, চাটাই, চাঙারি, টুকরি, ওড়া, ডালা, চালুনি, মাছ রাখার খালই, ঝুড়ি ও হাঁস-মুরগির খাঁচাসহ বাঁশ বেতের নানা জিনিস। তার এ কাজে সাহায্য করেন বৃদ্ধ পিতা বীরেন্দ্র বিশ্বাস।
মৃত্যুঞ্জয়ের বয়স তখন ১২/১৩ বছর। ওই সময়ে তার দুই চোখে ব্যথা হতো। চোখের চিকিৎসা অনেক ব্যয়বহুল হওয়ায় গরিব পরিবার চিকিৎসা করাতে পারেনি। প্রায় ১৫ বছর আগে চোখের আলো হারিয়ে ফেলেন তিনি।
মৃত্যুঞ্জয় বলেন, ‘ছোটবেলায় টাকার অভাবে চোখের চিকিৎসা করাতে পারিনি। আর এখন তো চোখের রগ শুকিয়ে গেছে। ডাক্তার বলছে এখন আর চোখ ভালো হবে না।’
তিনি বলেন, ‘আমি শারীরিক প্রতিবন্ধী। চোখে দেখি না। তবে সৃষ্টিকর্তা আমাকে কাজ করার শক্তি দিয়েছেন। ছোট করে হলেও কাজ করে খেতে পারি। কারও কাছে হাত পাততে হয় না। তাই ভালো আছি।’
মৃত্যুঞ্জয় বিশ্বাসের শৈশব, কৈশোর কেটেছে সুনামগঞ্জ জেলার দিরাই উপজেলার করিমপুর ইউনিয়নের ছায়াঘেরা পুরাতন কর্ণগাঁও গ্রামে। তার পৈত্রিক ভিটেবাড়ি এটি। চার ভাইবোনের মধ্যে তিনি তৃতীয়। দুই বোনের বিয়ে হয়েছে। একমাত্র ছোটভাই সনঞ্জয় বিশ্বাস দিরাই শহরে একটি মিষ্টির দোকানে চাকুরী করেন। গরিব পরিবারে জন্ম নেয়ায় স্কুলে যাওয়ার সৌভাগ্য হয়ে উঠেনি তার। অভাবের তাড়নায় ছোট থেকেই কর্মজীবনে জড়িয়ে পড়েন।
মৃত্যুঞ্জয় বলেন, আমি চোখে না দেখলেও এই বাড়ি-ঘর, বাঁশ বেত আমার চেনা। আমার কাজগুলো আমি করতে পারি। বছরখানেক আগে মৃত্যুঞ্জয় বিয়ে করেন। স্ত্রী আর বৃদ্ধ বাবা-মাকে নিয়েই তার সংসার।
চোখের আলো নেই, তবুও বেত ওঠানো, বুনন এমন জটিল কাজ কিভাবে করছেন- এমন প্রশ্নের জবাবে মৃত্যুঞ্জয় বলেন, ভিক্ষা করা, মানুষের কাছে হাতপেতে কিছু নেওয়া আমি পছন্দ করি না। চোখের আলো হারিয়ে বিমর্ষ হয়ে পরেছিলাম। তবে হাল ছাড়িনি। কিছু করার অদম্য ইচ্ছা থেকে আজকে এপর্যন্ত এসেছি। কাজ করে খাওয়ার মধ্যে আনন্দ আছে। সমাজে সবার সঙ্গে আনন্দ নিয়ে থাকা যায়।
মৃত্যুঞ্জয়ের পিতা বীরেন্দ্র বিশ্বাস বলেন, ধারালো দা দিয়ে বেত ওঠানোসহ যে কোন ধরনের বাঁশ বেতের জিনিস দ্রুততার সাথে করতে পারে মৃত্যুঞ্জয়। অসহায়ের সহায় তাকে সেই শক্তি দিয়েছেন।
মৃত্যুঞ্জয় নিজের কর্মক্ষেত্র আরেকটু বিস্তৃত করার স্বপ্ন দেখেন। তার তৈরী করা বাঁশ বেতের জিনিস বিক্রির জন্য দিরাই পৌর শহরে একটি দোকান করতে চান তিনি। মৃত্যুঞ্জয় বলেন, পাইকাররা ন্যায্য দাম দেয় না। শহরে নিজের একটি দোকান থাকলে মালের চাহিদা আরও বাড়তো। উপযুক্ত মুল্যও পেতাম। কিন্তু আমার সে সামর্থ্য নেই। সরকার যদি সহযোগিতা করতেন, তবে এই অন্ধের স্বপ্ন পূরণ হতো।




ছাতকে কলেজ ছাত্র হত্যা মামলায় তিন সহপাঠীর যাবজ্জীবন

ধর্মপাশার ঘুলুয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভোটকেন্দ্রটি পরিদর্শন করলেন জেলা প্রশাসক

শাল্লার নোয়াগাঁওয়ে তান্ডব: আত্মসমর্পণকারী ৪৯ জন কারাগারে

জামালগঞ্জ সদর ইউপি চেয়ারম্যান সাজ্জাদ মাহমুদ সাময়িকভাবে বরখাস্ত

ধর্মপাশায় ভোট কেন্দ্র থেকে চারদিন পর ব্যালট পেপার উদ্ধার

দোয়ারাবাজারে খাল ভরাট করে আশ্রয়ন প্রকল্পের ঘর নির্মাণের প্রতিবাদে মানববন্ধন

সুনামগঞ্জে ১৮ ইউনিয়নের ১১টিতেই নৌকার ভরাডুবি

সিলেট বিভাগে নৌকার প্রথম নারী চেয়ারম্যান সুনামগঞ্জের দীপা

গ্রামীণ রাস্তাঘাটের উন্নয়নে সরকার খুব বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে -হুইপ পীর মিসবাহ

জগন্নাথপুরে সিএনজি ও ট্রাক্টরে মুখোমুখি সংর্ঘষে নিহত ২

১৮ কিলোমিটার ফ্লাইওভার নির্মাণ করে সুনামগঞ্জের সাথে ধর্মপাশার যোগাযোগ স্থাপন করা হবে : পরিকল্পনা মন্ত্রী

তাহিরপুরের সাবেক এমপি কালিচরন মুচির পরিবারে এখনও টিকে আছে নাগরী ভাষা

বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে সুনামগঞ্জ জেলা বিএনপির প্রতিবাদ-বিক্ষোভ

আমলাদের ‘পাছায় লাথি’ ফর্মুলায় দুঃস্থ তালিকা

গরু চুরির প্রতিবাদ করতে গিয়ে জামালগঞ্জে দুই পক্ষের সংঘর্ষ। আহত ৪।

আওয়ামীলীগের ৬ইউনিটের সম্মেলন প্রস্ততি কমিটি দলকে গতিশীল করতে করা হয়েছে

২০ ফেব্রুয়ারি পরিকল্পনা মন্ত্রীর দিরাই সফর নিয়ে দ্বিধাবিভক্ত আ.লীগ,দেখানো হতে পারে কালো পতাকা

সুনামগঞ্জ জেলা সদর হাসপাতালের প্রধান সহকারী ইকবাল ও তার স্ত্রীর সম্পদের উৎস কোথায় ?

সুনামগঞ্জ সরকারী কলেজ পুনর্মিলনী : সদস্যসচিব এর বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে অভিযোগ দায়ের

এমপিরা অতঃপর ‘স্যার’ বলবেন ডিসিদের !!

error: Content is protected !!