শিরোনাম
  জামালগঞ্জে বিএনপি নেতা এমদাদুল হক আফিন্দীর নামে চাঁদাবাজির অভিযোগ :       জামালগঞ্জে হাওরে মাছের আকাল, চাষের মাছই ভরসা       ছাতক পৌর মেয়রের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগে আদালতে মামলা       দিরাইয়ে মডেল মসজিদের নির্মাণ কাজে ধীরগতি       আজ পহেলা সেপ্টেম্বর রানীগঞ্জ গণহত্যা দিবস       খানাখন্দে ভরা জামালগঞ্জ কারেন্টের বাজার সড়ক,ভোগান্তি অর্ধলক্ষ মানুষের       শ্রীরামসী গণহত্যা দিবস পালিত       এক হাজার পরিবারকে প্রধানমন্ত্রীর উপহার প্রদান করলেন মুকুট       তাহিরপুরে শহীদ সিরাজের সমাধিতে এমপি সহ নেতাকর্মীদের দোয়া       সুনামগঞ্জের সম্ভাবনাময় পর্যটন নিয়ে সরকার ব্যাপক আন্তরিক পর্যটন সচিব    


তাহিরপুর প্রতিনিধি: দীর্ঘ সময় করোনায় লকডাউন-বিধিনিষেধের বেড়া জালে পড়ে কাজ বন্ধ থাকায় কামারদের কাজকর্মে ভাটা পড়েছে। ঈদেও করোনার ছুরি চলেছে কামাররা পেশায়। অতীতে ঈদুল আজহার মৌসুমের জন্য পুরো বছরই চলত কামারদের অপেক্ষা। নতুন ছুরি,চাপাতি,বঁটি,কুড়ালের বিক্রি কয়েকগুণ বেড়ে যাওয়ার কথা,সাথে পুরুনো গুলোকে ধারালো করতে নিয়ে আসায় সঙ্গত কারণেই কামারশালা টুংটাং ধাতব শব্দে মুখর হয়ে ওঠে। কোরবানির ঈদ এলে কাজের চাপে দম ফেলার সময় পেতেন না। সকাল থেকে রাত পর্যন্ত তপ্ত লোহায় হাতুড়ির পিটুনিতে ছুরি,বঁটি,চাপাতি বানানোয় ব্যস্ত থাকতেন তারা। ঈদকালীন রোজগারে বেশ কয়েক মাস চলে যেত তাদের। কিন্তু করোনার কারণে সেদিন আর নেই।
ঈদুল আজহায় উপলক্ষ্যে গত সপ্তাহ পর্যন্ত সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার ৭টি ইউনিয়নের বিভিন্ন বাজারে কামারশালা গুলোতে দেখা যায়নি কোনো কর্মচাঞ্চল্য।
তবে ঈদের আগ মুহূর্তে লকডাউন শিথিল হওয়াতে দেরিতে হলেও জেগে উঠেছে শুরু করেছে কামারশালা গুলো। যেন প্রাণ ফিরে পেয়েছেন কামারেরা। তবে সব মিলিয়ে পেশাগতভাবে ভালো নেই বলে জানান তারা।
করোনায় এবারও পশু কোরবানির প্রয়োজনীয় সারি সারি ছুরি,চাকু,দা,বটি,চাপাতি দোকানের সামনে বিছিয়ে রাখলেও ক্রেতার দেখা না পাওয়ায় সারা বছরের আগুনের উত্তাপ গায়ে জড়িয়ে লোহা পিটিয়ে যন্ত্রে পরিণত করা কামার ও কামার ব্যবসার সাথে জড়িতদের কপালে এখন শঙ্কার ভাঁজ পড়েছে।
এরপরও থেমে নেই আগুনে লোহা গলিয়ে নানা যন্ত্রপাতি তৈরির কাজ। তাদের প্রত্যাশায় ঈদের বাকি দিনগুলোতে বেচা কেনা বাড়বে।
জানাযায়,আগে মানুষ নিজেরাই নিজেরদের কোরবানির পশু জবাই ও কাটার কাজ করতেন। এখন তা করে দিচ্ছে পেশাদার কসাইরা। তাই অনেকে দা-বটি কিনছেনই না। বর্তমানে দা-বটি কেজি প্রতি ৩৫০থেকে ৫০০টাকা। চাপাতি ৪৫০টাকা,চামড়া ছাড়ানোর ছুরি ১৫০থেকে ৩০০টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া অন্যান্য ছুরি বিক্রি হচ্ছে ৫০থেকে ৮০টাকা দরে।
বাদাঘাট বাজারে কামার রাশেন্ড্র জানায়,সংসার চালাতে বেগ পেতে হচ্ছে অনেক। কত পেশার মানুষ করোনার কারণে সাহায্য-সহায়তা পেয়েছে। কিন্তু আমাদের সরকার বা কেউ সাহায্য দেয় না,দেয় না কোনো আর্থিক সুবিধা। এমনিতেই এ পেশায় থেকে এখন সংসার চালাতে হিমশিম খেতে হয়। এর মধ্যে আবার করোনার ছুরি চলেছে পেশার ওপর দিয়ে। ভেবেছিলাম ঈদের সিজনে কিছু আয় হবে। সেটাও হলো না। ঈদের মাত্র এক সপ্তাহ আগে দোকান খুলতে দিছে। এই কম সময়ে কতটুকুই আর ব্যবসা হবে। অতি সম্প্রতি কয়লার দাম প্রতি বস্তায় অন্তত ২০০ টাকা বেড়েছে। আগে এক বস্তা কয়লা কিনতে ১৭০০ থেকে ১৮০০ টাকা খরচ হলেও এখন ২ হাজার টাকার নিচে বস্তা কেনা যাচ্ছে না। অন্যদিকে আমাদের কাঁচামাল যে লোহা সেটার দামও কেজিতে ৪০থেকে ৫০ টাকা পর্যন্ত বেড়েছে। অথচ ছুরি,দা,চাপাতির দাম সে তুলনায় বাড়েনি।
কামার ওমর পাল বলেন,করোনায় গত বছরের মত এবারও সব শেষ। লকডাউনে দোকান বন্ধ রাখতে হয়েছে। এখন দোকান খোললেও ক্রেতা নেই। অথছ প্রতি বছর কোরবানির ঈদের ১৫দিন আগে থেকেই কেউ নতুন ছুরি,চাকু,দা,বটি,চাপাতি আবার কেউ কেউ পুরনো গুলোকে শান(দার) দিতে উপচেপড়া ভিড় থাকত। এবার তার উল্টোটাই ঘটছে।
ব্যবসায়ী রাজন জানান,করোনার আগে বছরের পুরোটা সময়জুড়ে দা,বঁটির বেচাকেনা থাকলেও বড় বাণিজ্যটা হয় কোরবানির ঈদের আগে। লকডাউনের কারণে এবার এর ব্যত্যয় ঘটেছে। প্রতিবছর কোরবানির ঈদের সময় প্রতিদিন গড়ে ১০থেকে ১২হাজার টাকা আয় হয় আমাদের। গত বছর কিছুটা কম হলেও আয় হয়েছে। কিন্তু এবার তো দোকানই খুলতে পারিনি।
গত ১৪ জুলাই থেকে দোকান খুলেছি। রোজ তিন হাজার টাকাও বিক্রি নেই। তার ওপর ব্যবসার ব্যয়ও বেড়েছে। কয়লার দাম,লোহার দাম সবই বেড়ে গেছে। কেমনে যে সংসার চালাব বুজে আসে না। সকাল থেকে রাত অবধি দোকানে যন্ত্রপাতি নিয়ে বসে থাকলেও মিলছে না ক্রেতা।
শুধু রাশেন্ড্র,অমর পাল নয় জেলার ১১উপজেলার পাচঁ শতাধিক কামার ও এর সাথে জড়িত ব্যবসায়ীরা মানবেতর জীবনযাপন করছে।




১৮ কিলোমিটার ফ্লাইওভার নির্মাণ করে সুনামগঞ্জের সাথে ধর্মপাশার যোগাযোগ স্থাপন করা হবে : পরিকল্পনা মন্ত্রী

তাহিরপুরের সাবেক এমপি কালিচরন মুচির পরিবারে এখনও টিকে আছে নাগরী ভাষা

বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে সুনামগঞ্জ জেলা বিএনপির প্রতিবাদ-বিক্ষোভ

আমলাদের ‘পাছায় লাথি’ ফর্মুলায় দুঃস্থ তালিকা

গরু চুরির প্রতিবাদ করতে গিয়ে জামালগঞ্জে দুই পক্ষের সংঘর্ষ। আহত ৪।

আওয়ামীলীগের ৬ইউনিটের সম্মেলন প্রস্ততি কমিটি দলকে গতিশীল করতে করা হয়েছে

২০ ফেব্রুয়ারি পরিকল্পনা মন্ত্রীর দিরাই সফর নিয়ে দ্বিধাবিভক্ত আ.লীগ,দেখানো হতে পারে কালো পতাকা

সুনামগঞ্জ জেলা সদর হাসপাতালের প্রধান সহকারী ইকবাল ও তার স্ত্রীর সম্পদের উৎস কোথায় ?

সুনামগঞ্জ সরকারী কলেজ পুনর্মিলনী : সদস্যসচিব এর বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে অভিযোগ দায়ের

এমপিরা অতঃপর ‘স্যার’ বলবেন ডিসিদের !!

error: Content is protected !!