শিরোনাম
  জামালগঞ্জে বিএনপি নেতা এমদাদুল হক আফিন্দীর নামে চাঁদাবাজির অভিযোগ :       জামালগঞ্জে হাওরে মাছের আকাল, চাষের মাছই ভরসা       ছাতক পৌর মেয়রের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগে আদালতে মামলা       দিরাইয়ে মডেল মসজিদের নির্মাণ কাজে ধীরগতি       আজ পহেলা সেপ্টেম্বর রানীগঞ্জ গণহত্যা দিবস       খানাখন্দে ভরা জামালগঞ্জ কারেন্টের বাজার সড়ক,ভোগান্তি অর্ধলক্ষ মানুষের       শ্রীরামসী গণহত্যা দিবস পালিত       এক হাজার পরিবারকে প্রধানমন্ত্রীর উপহার প্রদান করলেন মুকুট       তাহিরপুরে শহীদ সিরাজের সমাধিতে এমপি সহ নেতাকর্মীদের দোয়া       সুনামগঞ্জের সম্ভাবনাময় পর্যটন নিয়ে সরকার ব্যাপক আন্তরিক পর্যটন সচিব    


বিশেষ প্রতিনিধিঃ সুনামগন্জ জেলা আওয়ামী লীগের বিক্ষুব্ধ অংশ গত মঙ্গলবার আরেক দফা কেন্দ্রীয় যুগ্মসম্পাদক মাহবুবুল আলম হানিফ ও সাংগঠনিক সম্পাদক আহমেদ হোসেনের সঙ্গে দেখা করেছেন। মঙ্গলবার ধানমন্ডীর কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে গিয়ে দেখা করেন তাঁরা। এসময় জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মতিউর রহমান এবং সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার এম এনামুল কবির ইমনের করা জেলার ৬ ইউনিটের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির বিরুদ্ধে নালিশ করেন এঁরা।

কেন্দ্রীয় নেতাদের তারা জানান, একতরফা গঠনকৃত সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি নিজেদের ইউনিট কমিটি ঘোষণা দিয়ে কার্যক্রম চালানোর চেষ্টা করছে। অথচ প্রত্যেক উপজেলায় সংগঠনের আলাদা কমিটি আছে। দুই কমিটি কাজ করায় বিভান্তি সৃষ্টি হচ্ছে বলে এই অংশের নেতারা দাবি করেন।

ধানমন্ডির কার্যালয়ে কেন্দ্রীয় দায়িত্বশীল এই দুই নেতার সঙ্গে দেখা করার সময় জেলা নেতাদের মধ্যে ছিলেন তাহিরপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান করুণা সিন্ধু চৌধুরী বাবুল, সংগঠনের যুগ্মসম্পাদক ছাতক পৌর সভার মেয়র আবুল কালাম চৌধুরী, জেলা কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক শংকর দাশ ও জুনেদ আহমদ, জেলা কমিটির দায়িত্বশীল নেতা আসাদুজ্জামান সেন্টু, শামীম আহমদ চৌধুরী, সীতেশ তালুকদার মঞ্জু, আজাদুল ইসলাম রতন, অমল কর ও কামরুল ইসলাম প্রমুখ৷

সুনামগঞ্জ আওয়ামী লীগের দায়িত্বশীল নেতারা বলেছেন, কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদকের উপস্থিতিতে জেলা কমিটি বৈঠক করে এসব সমস্যার সমাধান করবেন। ঢাকায় অথবা সুনামগঞ্জে শীঘ্রই জেলা কমিটির বৈঠক ডাকার নির্দেশ দেওয়া হবে জানিয়ে কেন্দ্রীয় নেতারা বলেছেন, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি দেশের বাইরে রয়েছেন। উনি দেশে আসার পর বৈঠক ডাকা হবে বলে জানা যায় । এর আগে জেলা আওয়ামী লীগের বিবদমান দুই গ্রুপ একই বিষয়ে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের সঙ্গে দেখা করে একে অপরের বিরুদ্ধে নালিশ করে এসেছিলেন।

জেলা আওয়ামীলীগের দায়িত্বশীল অনেকের সাথে আলাপ করে জানা যায় ,যে ৬টি ইউনিটের সম্মেলন প্রস্ততি কমিটি করা হয়েছে তা দলের স্তবিরতা কাটিয়ে উটার জন্য করা হয়েছে কেননা সম্মেলন ছাড়া এবং কেন্দ্রীয় অনোমোদন ব্যাতিত উপজেলা কমিটি করা এবং এসব করা সময়সাপেক্ষ ব্যাপার বলে সম্মেলন প্রস্তত কমিটি করা হয়েছে জেলা কমিটির মেজরিটি সদস্যদের মতামতের ভিত্তিত।

এ ব্যাপারে জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ব্যারিস্টার এনামুল কবির ইমন বলেন, ২০১৯ সালে অক্টোবর মাসে কেন্দ্রীয় নেতারা সুনামগন্জ জেলা আওয়ামীলীগের বর্ধিত সভায় আসলে তখন বলেন ,সম্মেলন প্রস্তত কমিটি করে দলকে সচল করার জন্য ,কিন্ত পরবর্তীতে করোনা মহামারী , স্বাধীনতার সূবর্ন জয়ন্তি ,মুজিব শতবর্ষ উদযাপনের জন্য আমাদের দ্বারা এসব করা সম্ভব হয়নি ।সম্মেলন ব্যাতিত যে সকল ইউনিটের কমিটি অনেকদিন ধরে চলতেছে সেইসব ইউনিট কমিটিতেই আমরা সম্মেলন প্রস্তত কমিটি গঠন করেছি জগন্নাথপুর তাহিরপুর ধর্মপাশা জামালগন্জ এই সব উপজেলায় আমরা প্রস্তত কমিটি করি নাই । অপরদিকে সুনামগন্জ সদরের সভাপতি দক্ষিন সুনামগন্জ নতুন উপজেলা হওয়ায় এবং সেখানকার ভোটার হওয়ায় গঠনতন্ত্র মোতাবেক তিনি সভাপতি থাকতে পারেন না । কমিটির সদস্য কেউ হতে হলে থাকে অবশ্যই সেই উপজেলার স্হায়ী বাসিন্দা এবং ভোটার হতে হবে ।সদর কমিটিও সম্মেলনে মাধমে ১৯৯৭ সালে হয়েছিল কেন্দ্রীয় অনুমোদন নিয়ে অপরদিকে ছাতক ,ছাতক পৌর কমিটি,দোয়ারাবাজার উপজেলা কমিটি মানবতার নেত্রী গনতন্তের মানষকন্যা সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাংগালী বঙ্গবন্ধুর কন্যা জননেত্রীর হাতের দেওয়া অনোমোদিত কমিটি ,যা ২০০০সালে গনভবনে জেলা ,উপজেলা নেতৃবৃন্দের উপস্তিতিতে জননেত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বলে দেন ,আমার দেওয়া কমিটিই আসল কমিটি ,অন্যকোনকমিটির বৈধতা নেই । আমার দেওয়া কমিটি ভাংগার কারো অধিকার নাই ।সেই কমিটি সেসব জায়গায় এখন বিদ্যমান । পরবতীতে সম্মেলনের মাধমে বা কেন্দ্রের অনোমদনে কোন কমিটি করা হয় নাই । প্রায় পচিশ বৎসর পুরানো এই তিন ইউনিটের সভাপতি ,সাধারনসম্পাদক সহ কমিটর অনেকে মৃত্যুবরন ,বাধ্যকজনিতকারন ,অনেকে নিস্রীয় থাকার কারনে দলকে সতেজ করার জন্য এই সব কমিটি গঠন করা হয়েছে ।যেহেতু সম্মেলন এবং কমিটিগঠন কেন্দ্রের অনোমদন ব্যাতিত সম্ভব নয় ,তা সময়সপেক্ষ ব্যাপার । অনুরুপভাবে দিরাই সভাপতি দীর্ঘদিন যাবত অসুস্থ কিছুদিন আগে মারা গিয়েছেন সাধারন সম্পাদক একটি মামলাতে পলাতক যুগ্ম সাধারন সম্পাদক বহিস্কৃত দলের মূল তিনজনই দলের সাথে নেই । তাছাড়া কমিটির পুরাতন হওয়ায় অনেকেই বাধ্যকজনিত কারনে বা মৃত্যুবরন করায় কমিটি টিকমত কার্যকম চালাতে পারছে না। এসব বিবেচনায় সম্মেলন প্রস্তত কমিটি করা হয়েছে ।শাল্লা উপজেলার অবস্হাও একই সেখানকার সভাপতি মৃত্যুবরন করেছেন । এইসব বিবেচনা করে জেলা কমিটির অধিকাংশের মতামতের ভিত্তিতে এই ছয় ইউনিটের সম্মেলন প্রস্ততি কমিটি গঠন করা হয়েছে দলের গতি ফিরিয়ে আনার জন্য ।যেহেতু কেন্দ্রের অনোমোদন এবং সম্মেলন না করে উপজেলা কমিটি দেওয়া সম্ভব নয় ,সেজন্য দলের স্বার্থে এসব সম্মেলন প্রস্তত কমিটি গঠন করা হয়েছে ।

এ ব্যাপারে জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি মতিউর রহমান বলেন, আমার রাজনীতির বয়স ৬২ বৎসর সেই ১৯৬০ সাল থেকে আজ পর্যন্ত রাজনীতিতে সক্রিয় । আমার অভিজ্ঞতা এবং দলের প্রতি দায়িত্ব আছে । দলের প্রতি দায়িত্ববোধ থেকেই দলকে গতিশীল করার জন্য দলের স্বার্থে সম্মেলন প্রস্তত কমিটি করা হয়েছে কারো ব্যাক্তিগত স্বার্থে করা হয়নি যারা আপত্তি করতেছে কেন করতেছে বুঝতে পারতেছিনা তারা আমাদের সাথে আলাপ করতে পারে । কেন্দ্রীয়ভাবে উপজেলা কমিটির ভাংগার ব্যাপারে নিষেধ আছে সেইজন্য দলকে গতিশীল করার জন্য সম্মেলন প্রস্তত কমিটি গঠন করা হয়েছে




১৮ কিলোমিটার ফ্লাইওভার নির্মাণ করে সুনামগঞ্জের সাথে ধর্মপাশার যোগাযোগ স্থাপন করা হবে : পরিকল্পনা মন্ত্রী

তাহিরপুরের সাবেক এমপি কালিচরন মুচির পরিবারে এখনও টিকে আছে নাগরী ভাষা

বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে সুনামগঞ্জ জেলা বিএনপির প্রতিবাদ-বিক্ষোভ

আমলাদের ‘পাছায় লাথি’ ফর্মুলায় দুঃস্থ তালিকা

গরু চুরির প্রতিবাদ করতে গিয়ে জামালগঞ্জে দুই পক্ষের সংঘর্ষ। আহত ৪।

আওয়ামীলীগের ৬ইউনিটের সম্মেলন প্রস্ততি কমিটি দলকে গতিশীল করতে করা হয়েছে

২০ ফেব্রুয়ারি পরিকল্পনা মন্ত্রীর দিরাই সফর নিয়ে দ্বিধাবিভক্ত আ.লীগ,দেখানো হতে পারে কালো পতাকা

সুনামগঞ্জ জেলা সদর হাসপাতালের প্রধান সহকারী ইকবাল ও তার স্ত্রীর সম্পদের উৎস কোথায় ?

সুনামগঞ্জ সরকারী কলেজ পুনর্মিলনী : সদস্যসচিব এর বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে অভিযোগ দায়ের

এমপিরা অতঃপর ‘স্যার’ বলবেন ডিসিদের !!

error: Content is protected !!