দোয়ারাবাজারে অবৈধভাবে বালু ও পাথর উত্তোলন

দোয়ারাবাজারে অবৈধভাবে বালু ও পাথর উত্তোলন

দোয়ারাবাজার প্রতিনিধিঃ সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজার উপজেলার বাঁশতলা-হকনগর এলাকায় প্রশাসনের চোখের সামনে চলছে প্রভাবশালী চক্রের দ্বারা বালু ও পাথর উত্তোলনের মহোৎসব। বাঁশতলা শহীদ স্মৃতিসৌধ এলাকায় প্রভাবশালী চক্রটি প্রতিদিন সরকারের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে স্মৃতিসৌধ এলাকায় বড় বড় গর্ত করে পাথর উত্তোলন করে নিয়ে যাচ্ছে লাখ লাখ টাকার বালু ও পাথর । যার ফলে হুমকির মুখে রয়েছে পরিবেশ, সৌন্দর্য্য হারাচ্ছে উপজেলার নান্দনিক পর্যটন স্পটটি। সরকার ও প্রশাসনের তরফ থেকে
বাঁশতলা-হকনগর স্মৃতিসৌধ এলাকায় বালু ও পাথর উত্তোলনে নিষেধাজ্ঞা থাকলেও একটি পাথরখেকো চক্র ব্যাপরোয়া রয়েছে যারা প্রকাশ্যে বিজিবি”র চোখের সামনে প্রতি নিয়ত অবৈধ ভাবে নিয়ে যাচ্ছে বালু ও পাথর।
জানাগেছে, স্থানীয় কিছু প্রভাবশালী অবৈধভাবে ওই এলাকা হতে পাথর বালু উত্তোলন ও বিক্রি করছে। সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, অসাধু ব্যবসায়ীরা স্থানীয় শ্রমিকদের মাধ্যমে বাঁশতলা-হকনগর এলাকায় বড় বড় গর্ত তৈরি করে পাথর উত্তোলন করে। পরে এগুলো ট্রলি দিয়ে জুমগাঁও, হকনগর বাজার,বাশতলা এলাকায় ডাম্পিং করা হয়। ডাম্পিং করা লাখ লাখ টাকার পাথর ছাতকসহ বিভিন্ন এলাকায় নিয়ে যাওয়া হয়। সরকারি অনুমোদন বা কোনো প্রকার লিজ ছাড়াই চিহ্নিত একটি চক্র বহুদিন ধরে এখান থেকে অবাধে পাথর উত্তোলন ও বিক্রি করে একদিকে যেমন লাভবান হচ্ছে অবৈধভাবে বালু ও পাথর উত্তোলনকারী চক্র।অন্য দিকে এদেরকে সহযোগিতা করছেন প্রশাসনের কিছু অসাধু ব্যাক্তিরা।
স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, এলাকার কতিপয় প্রভাবশালীর নেতৃত্বে পাথর লুটপাট চলছে। আর অবাধে পাথর উত্তোলনের ফলে বাঁশতলা-হকনগর শহীদ স্মৃতিসৌধ এলাকা হুমকির মুখে পড়েছে।অন্যদিকে মৌলানদী,চিলাইপাড়, বালু নদী ও খাসিয়ামারা নদীতে দিনরাত সমানতালে চলে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন। প্রশাসনের নিরবতা রহস্যজনক।
এ বিষয়ে সহকারী কমিশনার (ভূমি) ফয়সাল আহমেদ বলেন, অবৈধভাবে পাথর উত্তোলন বন্ধে পদক্ষেপ নেয়া হবে। তাছাড়া পাথরখেকো সিন্ডিকেটের সঙ্গে জড়িতদের চিহ্নিত করে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে
এব্যপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফারজানা প্রিয়াংকা জানান আমার কাছে কিছু তথ্য এসেছে রাতের আধারেঁ কিছু অসাধু চক্র প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে বালু ও পাথর উত্তোলন করে যাচ্ছে। তবে প্রশাসন বালু পাথর উত্তোলনে কঠোর অবস্থানে রয়েছে কোন ভাবেই অবৈধ ভাবে বালু পাথর উত্তোলন করতে দেওয়া হবে না । যারা এসব করবে তাদের রিরুদ্ধে কঠোর আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। এবং প্রশাসনের তরফ থেকে অভিযান অব্যহত আছে।

About The Author

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *