সিএনজি চালকদের অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের অভিযোগ

সিএনজি চালকদের অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের অভিযোগ

দোয়ারাবাজার প্রতিনিধিঃ রাস্তা ভালো নয়,চালকদের নিজস্ব অর্থায়নে আংশিক সংস্কার করা হয়েছে,গ্যাসের দাম অতিরিক্তসহ নানান অজুহাতে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করছে সুনামগঞ্জের ছাতক ও দোয়ারাবাজার সড়কের সিএনজি চালকরা।ছাতক উপজেলার নোয়ারাই ও দোয়ারাবাজার উপজেলার বাংলাবাজার ওই সড়কের সিএনজি চালকদের মনগড়া অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের নৈরাজ্যে অতিষ্ঠ যাত্রীরা। সিএনজি চালকদের খেয়াল-খুশি মতো ভাড়া আদায়ের প্রতিবাদ করলে চালকদের কাছ থেকে নানা আপত্তিকর কথা শুনতে হয় বলে অভিযোগ যাত্রীদের। এ নিয়ে যাত্রীদের মধ্যে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।ভুক্তভোগী যাত্রীদের অভিযোগ, বাংলাবাজার থেকে নোয়ারাই জনপ্রতি ৫০ টাকার ভাড়া,সেখানে নেওয়া হচ্ছে ৮০-১০০টাকা,এভাবে প্রায় প্রতিটি সিএনজি স্ট্যান্ড থেকে চালকরা সম্মিলিতভাবে নিজেদের ইচ্ছামতো ভাড়া বাড়িয়ে নিয়েছে।
সিএনজি চালকরা জানান,রাস্তা খারাপ,নিজস্ব অর্থায়নে আংশিক সংস্কার করা হয়েছে,গ্যাসের দাম অতিরিক্ত, ভাঙ্গা রাস্তায় গাড়ি চলাচলে কয়েকদিন পর পর গাড়িতে কাজ করাতে হয়, যার কারনে ভাড়া বাড়ানো হয়েছে।
নাম প্রকাশে অনিশ্চুক নোয়ারাই ইউনিয়নের বাসিন্দা একজন দিনমুজুর জানান, তিনি বাংলাবাজার এলাকায় ৪০০ টাকা রুজে কাজ করেন, প্রতিদিন সকালে কাজের উদ্যেশে তিনি বাংলাবাজার আসেন ও সন্ধায় বাড়ি যান। এতে করে তাকে ৮০ করে ১৬০ টাকা গাড়ি ভাড়া দিতে হচ্ছে। ৪০০ টাকা রুজের শ্রমিক,১৬০ টাকা গাড়িভাড়া, তার মধ্যে দুপুরের খাবার। এ এযেনো মরার উপর খড়ার ঘা,তিনি এই হয়রানী থেকে মুক্তি পাওয়ার দাবী জানান।
জুবাইয়ের আহমদ বাংলাবাজারের এক ব্যাবসায়ী বলেন, আমরা শুনেছি বাংলাবাজার ইউপি চেয়ারম্যানের অর্থায়নে রাস্তার সংস্কার কাজ করা হয়েছে। কিন্তু রাস্তা সংস্কার করার অজুহাত দেখিয়ে চালকরা ৫০ টাকার জায়গায় ৮০-১০০ টাকা আদায় করছে, অহেতুক অজুহাতে ভাড়া বাড়ানোর প্রতিবাদ করলে তাদের সঙ্গে বাগবিত-া হয়। দোয়ারাবাজার উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা ও বাংলাবাজার ইউপি চেয়ারম্যানের নিকট অতিরিক্ত ভাড়া আদায় কারীদের আইনের আওতায় এনে যাত্রীদের হয়রানী দূরীকরণে কাজ করার দাবী জানাই।
বাংলাবাজার সিএনজি চালক সমিতির সভাপতি সাজ্জাদুর রহমান অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের বিষয়টি স্বিকার করে বলেন, রাস্তা খারাপ থাকায় সিএনজি চালকদের নিজস্ব অর্থায়নে সংস্কার কাজ করা হয়েছে। যার কারনে যাত্রীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করা হচ্ছে। তাছাড়া বাংলাবাজার ইউপি চেয়ারম্যানের সাথে আলোচনা করেই ভাড়া বাড়ানো হয়েছে বলে জানান তিনি।
ভাড়া বাড়ানোর সাথে সম্পৃক্ততার বিষয়টি অস্বিকার করে বাংলাবাজার ইউপি চেয়ারম্যান আবুল হোসেন বলেন,দীর্ঘ কয়েক বছর ধরে নোয়ারাই-বাংলাবাজার সড়কটি সংস্কার না হওয়ায়, মানুষ জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলচল করতে হচ্ছে। গত মাসে নোয়ারাই ও বাংলাবাজার ইউনিয়ন পরিষদের যৌথ উদ্যোগে রাস্তার সংস্কার কাজ করা হয়েছে। রাস্তা সংস্কার করার পর সিএনজি চালকের বলে দেওয়া হয়েছিলো কোন ভাবে যেনো যাত্রীরা হয়রানীর স্বিকার না হন। কিন্তু সিএনজি চালকরা তার উল্টো করছে,অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করে যাত্রীদের হয়রানী করছে,আমি বিষয়টির ব্যাবস্থা নিবো।
দোয়ারাবাজার উপজেলা নির্বাহি অফিসার ফারজানা প্রিয়াঙ্কা জানান, নির্ধারিত ভাড়ার নিয়ম অতিক্রম করে,সিএনজি চালকরা নিজেদের ইচ্ছেমতো কোনো ভাড়া আদায় করতে পারেনা। অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের বিষয়টি তদন্ত করে আইনানুগ ব্যাবস্থা নেওয়া হবে।

About The Author

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *