তাহিরপুরে নির্মাণাধীন ভবনের রড মাথায় ঢুকে শিক্ষার্থীর মৃত্যু

তাহিরপুরে নির্মাণাধীন ভবনের রড মাথায় ঢুকে শিক্ষার্থীর মৃত্যু

তাহিরপুর প্রতিনিধি: সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলায় কন্ট্রাক্টারের গাফিলতির কারনে নির্মাণাধিন স্কুলের ছাদের উপর থেকে রড মাথায় পরে উষা মনি(৮)নামে এক শিক্ষার্থী নিহত হয়েছে। এঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। এঘটনায় নির্মাণাধীন ভবনের ৭জন শ্রমিক নিরাপত্তার জন্য নিজেদের হেফাজতে নিয়েছে পুলিশ।
রবিবার সকাল পনে ন’টায় উপজেলার শ্রীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ঘটনাটি ঘটে। নিহত শিক্ষার্থী উপজেলার দক্ষিণ শ্রীপুর ইউনিয়নের শাহগঞ্জ শ্রীপুর গ্রামের আনোয়ার হোসেন মেয়ে ও শ্রীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দ্বিতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থী।
স্থানীয় এলাকাবাসী ও খোঁজ নিয়ে জানাযায়,উপজেলার শ্রীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে তিন তলা নতুন ভবন নির্মাণ কাজ চলমান। নিচ ও দ্বিতীয় তলার কাজ শেষ হওয়ার নিচ তলায় শিক্ষার্থীদের পাঠ্যদাল চলছিল। প্রতিদিনের মত রবিবার সকালে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা আসেন। সকালে প্রতিদিনের মত স্কুলে আসে শিক্ষার্থী উষা মনি(৮)। পানি খাওয়ার জন্য শ্রেণি কক্ষ থেকে ন’টায় সময় বের হলে নির্মানাধিন তিন তলা ভবনের উপর কাজ করা অবস্থায় এক শ্রমিকের হাত থেকে একটি রড নিচে শিক্ষার্থী মাথায় পরলে গুরুত্ব আহত হয়। এসময় শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসী মিলে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে।
প্রতক্ষদর্শী শাহগঞ্জ শ্রীপুর গ্রামের শাহ আলম ও রবিন মিয়া জানান,স্কুলের কন্ট্রাক্টার ও গ্রামের তার কিছু সহযোগিতাকারীদের সহযোগিতায় ভবন নির্মাণে ব্যাপক অনিয়ম করেছে পাশাপাশি নিরাপত্তা নিশ্চিত না করেই কাজ করছিল এনিয়ে আমরা বারবার বলে আসছি কিন্তু নিরাপত্তা নিশ্চিত না করে কাজ চালিয়ে যায় কন্ট্রাক্টার ও তার নিয়োজিত লোক কোন কথাই শোনে নি। উল্টো নানান ভাবে হুমকি ও হয়রানী করেছে আমাদেরকে। কন্ট্রাক্টার ও তার নিয়োজিত লোকদের গাফিলতির কারনে এই ঘটনাটি ঘটেছে।
শ্রীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোফাজ্জল হোসেন জানান,আমরা সকাল সাড়ে ৮টায় স্কুলে আসার পর ঐ শিশু শিক্ষার্থী ন’টার দিকে পানি খাওয়ার জন্য শ্রেণি কক্ষ থেকে বের হলে উপর থেকে রড মাথায় পরে গুরুত্ব আহত হয়। পরে হাসপাতালে যাওয়ার পথে মারা যায়।
প্রাথমিক সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা কামরুজ্জামান ঘটনা সত্যতা নিশ্চিত করে জানান,ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। এবিষয়ে আমাদের পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা হচ্ছে।
কন্ট্রাক্টার মাইন উদ্দিন জানান,এটা একটা দূর্ঘটনা। আপনি নিরাপত্তা না নিয়ে কাজ করলেন কেন এমন প্রশ্ন করলে তিনি জানান নির্মাণাধিন ভবনের নিচে ক্লাস না করার জন্য আমি নিষেধ করেছিলাম এরপরও ক্লাস করার কারনে এই দূর্ঘটনা ঘটেছে। আপনি কাজ বন্ধ রাখতে পারতেন এমন প্রশ্নে তিনি বলেন আমি আমার কাজ শেষ করার জন্য কাজ চলমান রেখেছি।
উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা অফিসার ডাঃ মির্জা রিয়াদ হাসান জানান,মাথায় আগাতের কারণ হাসপাতালে আসার পূর্বে শিশুটি মারা গেছে।
দক্ষিন শ্রীপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আলী আহমদ মোরাদ জানান,ঘটনাটি খুবেই মর্মান্তিক। অসচেতনতার কারনে একটি শিশুর প্রান চলে গেলে।
তাহিরপুর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সৈয়দ ইফতেখার হোসেন জানান,নিহত স্কুল শিক্ষার্থীর লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। তবে নির্মানাধিন ভবনের ৭জন শ্রমিকদের নিরাপত্তার স্বার্থে আমাদের হেফাজতে নিয়ে এসেছি। এখনও পর্যন্ত কোন লিখিত অভিযোগ পাইনি।
তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ রায়হান কবির জানান,ঘটনাটি খুবেই মর্মান্তিক এবিষয়ে কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ করা হচ্ছে।

About The Author

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *