১১ দফা দাবিতে এমপিওভুক্ত
শিক্ষক-কর্মচারীদের স্মারকলিপি প্রদান

১১ দফা দাবিতে এমপিওভুক্ত<br>শিক্ষক-কর্মচারীদের স্মারকলিপি প্রদান

প্রতিদিন প্রতিবেদক: এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের ১১ দফা দাবি নিয়ে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে বাংলাদেশ কলেজ- বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি (বাকবিশিস) সুনামগঞ্জ জেলা শাখা দেশের শিক্ষাব্যবস্থার মানোন্নয়ন ও এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের ন্যায্য দাবি পূরণের লক্ষ্যে সরকারের সুবিবেচনার জন্য জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে শিক্ষা মন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেছে।
২৩ মে, সোমবার সকাল ১১ ঘটিকায় স্মারকলিপি প্রদান কালে উপস্থিত ছিলেন – বাকবিশিস সুনামগঞ্জ জেলা শাখার সভাপতি সহকারী অধ্যাপক শুভঙ্কর তালুকদার, সিনিয়র সহ-সভাপতি সহকারী অধ্যাপক রামানুজ রায়,সাধারণ সম্পাদক প্রভাষক মো.জামাল হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক প্রভাষক দুলাল মিয়া, অর্থ সম্পাদক প্রভাষক কাঞ্চন বৈদ্য, সদস্য প্রভাষক হিমাদ্রী শঙ্কর তালুকদার, গ্রন্থাগার ও তথ্য বিজ্ঞান শিক্ষক স্বপন রায় প্রমুখ।
১১ দফা দাবির মধ্যে রয়েছে : ২০১০ সালে ঘোষিত জাতীয় শিক্ষানীতি বাস্তবায়ন করা,বিচ্ছিন্ন-বিক্ষিপ্ত সরকারিকরণ নয়, শিক্ষা ব্যবস্থার জাতীয়করণ করা, সরকারি শিক্ষক-কর্মচারীদের ন্যায় এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদেরও শতভাগ উৎসব ভাতা, বাড়ি ভাড়া ও চিকিৎসাভাতা প্রদান, উচ্চ মাধ্যমিক স্কুল ও কলেজ এবং উচ্চ মাধ্যমিক কলেজের জ্যেষ্ঠ প্রভাষকের পদ বাতিল করে, পূর্বের ন্যায় সহকারী অধ্যাপকের পদ চালু করা, বেসরকারি কলেজে অনার্স ও মাষ্টার্স পর্যায়ে নিয়োগকৃত শিক্ষকদের এমপিওভুক্তসহ বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কর্মরত সকল শিক্ষক-কর্মচারীদের অবিলম্বে এমপিওভুক্ত করা, বেসকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের জন্য সরকারি শিক্ষক-কর্মচারীদের ন্যায় অবসর সুবিধা প্রদান, তবে এই বিধান না হওয়া পর্যন্ত অবসরে যাওয়ার তিন মাসের মধ্যেই কল্যাণ ট্রাস্ট ও অবসর তহবিলের টাকা প্রদান করা, ২০১০ সালের জাতীয় শিক্ষানীতির আলোকে বেসরকারি কলেজে সহযোগী অধ্যাপক ও অধ্যাপকের পদ সৃষ্টি করা, শিক্ষা প্রশাসনে বেসরকারি শিক্ষকদের আনুপাতিক হারে পদায়ন করা, ২০১৮ সাল থেকে সর্বশেষ সরকারীকরণকৃত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীদের অবিলম্বে পদায়নপূর্বক বেতন-ভাতা প্রদান করা, অধ্যক্ষ ও উপাধ্যক্ষ পদে পূর্বের ন্যায় অভিজ্ঞতার ভিত্তিতে নিয়োগ প্রদান করা এবং বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানের পদে সরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কোনো শিক্ষক নিয়োগ করা যাবে না।
দাবিসমূহের গুরুত্ব অনুধাবন করে অনতিবিলম্বে দেশের শিক্ষা ব্যবস্থার মানোন্নয়ন ও বেসরকারি শিক্ষক-কর্মমচারীদের ন্যায্য দাবিসমূহ পূরণের জন্য সরকারের সুদৃষ্টি কামনা করা হয়।

About The Author

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published.