1. newsjibon@gmail.com : adminsp :
শাল্লায় জেলা প্রশাসক বয়স্ক ব্যক্তিদের চিন্তা করেই সরকার সর্বজনীন পেনশন স্কিম চালু করা হয়েছে - সুনামগঞ্জ প্রতিদিন
শুক্রবার, ১২ এপ্রিল ২০২৪, ০৫:৩৯ অপরাহ্ন

শাল্লায় জেলা প্রশাসক বয়স্ক ব্যক্তিদের চিন্তা করেই সরকার সর্বজনীন পেনশন স্কিম চালু করা হয়েছে

শাল্লা প্রতিনিধি
  • বৃহস্পতিবার, ২৮ মার্চ, ২০২৪
  • ৯ বার পঠিত
Spread the love

শাল্লায় সর্বজনীন পেনশন স্কিম নিয়ে সর্বসাধারণের সাথে মতবিনিময় সভা করেছেন জেলা প্রশাসক। সর্বজনীন পেনশন স্কিমের কার্যক্রম সম্পর্কে জনগণের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধি ও এলাকাভিত্তিক সকল শ্রেণি-পেশার মানুষকে স্কিমের যোগ্যতা অনুসারে সবাইকে সর্বজনীন পেনশন স্কিমের আওতায় আনার লক্ষ্যেই মূলত এই মতবিনিময় সভাটি করেছেন জেলা প্রশাসক। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মনজুর আহসানের সভাপতিত্বে ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ আলাউদ্দিনের সঞ্চালনায় ২৭মার্চ বুধবার দুপুর ১২টায় গণমিলনায়তনে উপজেলার সর্বস্তরের মানুষের সাথে মতবিনিময় করা হয়েছে। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক মোঃ রাশেদ ইকবাল চৌধুরী। প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক বলেন সর্বজনীন পেনশন স্কিম চারটি ভাগে ভাগ করা হয়েছে প্রত্যেকের যোগ্যতা অনুসারে পেনশন স্কিমটি চালু করার জন্য উপস্থিত সবাইকে আহ্বান জানান তিনি। তিনি বলেন আমাদের দেশের জনসংখ্যার বেশিভাগ সংখ্যক যুবক। বিশেষ করে সেসব যুবকদের এই স্কিমে এগিয়ে আসতে হবে। আগেকার দিনে রাসায়নিক সার দেওয়ার মত কাউকে খুঁজে পাওয়া যেতো না,এখন সারের জন্য মানুষ কৃষি অফিস ও বিএডিসিতে ঘুরে বেড়ায় উল্লেখ করে তিনি বলেন সর্বজনীন পেনশন স্কিমের সফলতা বা মজা যখন মানুষ পেয়ে যাবেন তখন এমনিতেই সবাই এই স্কিমের আওতায় আসবে। তিনি বলেন সব দেশে সবসময় সব সুযোগ আসে না। এই সর্বজনীন পেনশন স্কিমটি আমাদের দেশের সরকারের খুব ভাল একটি উদ্যােগ। স্মার্ট বাংলাদেশের সাথে তাল মিলিয়ে সবাইকে এই পেনশন স্কিমটি করতে হবে। তিনি আরো বলেন এসব সুবিধা একটা জাতি সবসময় পায় না। এই সুবিধাটাকে কাজে লাগাতে হবে। একটা সময় আসবে ৪০-৫০ বছর পরে আমাদের অবস্থা এমন থাকবে না। ২০৫০ সালের মধ্যেই মোট জনসংখ্যার ২৫ ভাগ জনসংখ্যা হবে বৃদ্ধ। তখন আমাদের এই সর্বজনীন পেনশন স্কিমটা কাজে লাগবে। এখনকার সময় যৌথ পরিবার ভেঙ্গে সিঙ্গেল হয়ে যাচ্ছে। কিন্তু বয়স্ক ব্যক্তিদের কি হবে সেটা অনেকেই ভাবে না। তখন বৃদ্ধ লোকগুলো একটা সমস্যায় পড়ে যাবে। এসব কথা চিন্তা করেই মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা এই সর্বজনীন পেনশন স্কিমটি চালু করেছেন। এসময় বিভিন্ন ইউপি’র চেয়ারম্যান,ইউপি সদস্য ও বিভিন্ন স্তরের মানুষ বক্তব্যের মাধ্যমে তাদের মতামত প্রকাশ করেছেন। অন্যানদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা/কর্মচারীবৃন্দ। এদিকে জেলা প্রশাসকের আগমন উপলক্ষে সর্বজনীন পেনশন স্কিম করিয়ে দেওয়ার জন্য গণমিলনায়তনে আলাদা একটি বুথ খুলেছেন সোনালী ব্যাংক শাল্লা শাখা। অন্যদিকে জেলা প্রশাসক প্রথমেই মৎস্য অধিদপ্তরের দেওয়া রেণু পোনা ও মাছের খাদ্য বিতরণে উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গনে অংশগ্রহণ করেছেন। তারপর শাল্লা থানা পরিদর্শন, পরে মতবিনিময় সভা। এর পরপরই ইউনিয়ন পরিষদের অফিসগুলো পরিদর্শন করে বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি সংস্থার দেওয়া বরাদ্দ ও কাজকর্মের খোঁজখবর নেন তিনি। মতবিনিময় সভার ফাঁকে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে সুবিধাভোগীদের মধ্যে সমাজসেবা অধিদপ্তর ও একটি বাড়ি, একটি খামারের ক্ষুদ্র ঋণ বিতরণ করা হয়েছে।


Spread the love
এই বিভাগের আরো খবর

ওয়েবসাইট ডিজাইন প্রযুক্তি সহায়তায়: জুনায়েদ চৌধুরী জীবন

© All rights reserved © সুনামগঞ্জ প্রতিদিন
Theme Customized BY LatestNews
error: Content is protected !!