1. newsjibon@gmail.com : adminsp :
জামালগঞ্জের ইউএনও’র অপসারণ চান উপজেলা ও ইউনিয়ন পরিষদের ৯ চেয়ারম্যান - সুনামগঞ্জ প্রতিদিন
শুক্রবার, ১২ এপ্রিল ২০২৪, ০৫:৪৭ অপরাহ্ন

জামালগঞ্জের ইউএনও’র অপসারণ চান উপজেলা ও ইউনিয়ন পরিষদের ৯ চেয়ারম্যান

জামালগঞ্জ প্রতিনিধি
  • বৃহস্পতিবার, ২৮ মার্চ, ২০২৪
  • ১১ বার পঠিত
Spread the love

জামালগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: মাসুদ রানার সাথে এলাকার উন্নয়নমূলক কাজ নিয়ে উপজেলা পরিষদ ও ইউনিয়ন পরিষদের নয় জন জনপ্রতিনিধির সাথে দীর্ঘ দিন ধরে মতবিরোধ চলছে। এ কারনে গত ফেব্রুয়ারী মাসে ২-১ জন ছাড়া উপজেলা পরিষদের মাসিক সমন্বয় সভা বয়কট করেন জনপ্রতিনিধিবৃন্দ। ২৬ শে মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবসে উপজেলা প্রশাসন ও ৯ জন জনপ্রতিনিধি (উপজেলা পরিষদ ও ইউনিয়ন পরিষদের ৯ চেয়ারম্যান) পৃথকভাবে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। জামালগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ইকবাল আল আজাদের নেতৃত্বে উপজেলার ৬ ইউপি চেয়ারম্যান ও ইউপি সস্যদের নিয়ে বীর শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে ভিডিও বক্তব্যে সাংবাদিকদের এমনটিই জানান তারা। উপজেলার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারটি কোন সজ্জিত না করা ও শহীদ মিনারের সাথেই ময়লা আবর্জনার স্তুপ পড়ে থাকতে দেখে জনপ্রতিনিধি ও সুধীজন ক্ষোভ প্রকাশ করেন। অপর দিকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাও পৃথক ভাবে শহীদ মিনারে শহীদদের শ্রদ্ধা নিবেন করেন। নয় জন চেয়ারম্যান শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা নিবেদনের পর সাংবাদিকদের সামনে ঐক্যবদ্ধ হয়ে দেওয়া বক্তবে দেন (ভিডিও বক্তব্য), জামালগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ইকবাল আল-আজাদ, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান গোলাম জিলানী আফিন্দী রাজু, চেয়ারম্যানদের পক্ষে বক্তব্য রাখেন, ফেনারবাঁক ইউপি চেয়ারম্যান কাজল চন্দ্র তালুকদার ও বেহেলী ইউপি চেয়ারম্যান সুব্রত সামন্ত সরকার। তাদের বক্তব্যে একমত পোষণ করেন উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান বীনা রানী তালুকদার, সাচনা বাজার ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ মাসুক মিয়া, জামালগঞ্জ সদর ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ কামাল হোসেন, ভীমখালী ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ আখতারুজ্জামান তালুকদার, জামালগঞ্জ উত্তর ইউপি চেয়ারম্যান আবু হানিফ। বক্তারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মাসুদ রানা’র অপসারণ দাবী করে বলেন, জামালগঞ্জ উপজেলার কোন উন্নয়নমূলক কাজে তিনি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান,ভাইস চেয়ারম্যানদ্বয় ও ছয়টি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানদের সাথে কাজের ক্ষেত্রে কোন প্রকার সমন্বয় না করেই তার নিজের ইচ্ছামতে কাজ করে যাচ্ছেন। এতে করে এলাকার উন্নয়ন কাজ বিঘিœত হয়েছে, জনগনের কাছে জনপ্রতিনিধিরা বিভিন্ন প্রশ্নের সম্মুখীন হচ্ছেন। হাওরের বোরো ফসল রক্ষা বাঁধ নির্মান, বেহেলীর উত্তর পারে নতুন বাজার স্থাপনে অনিয়ম, উজ্জ্বলপুর রাস্তার কাজে অসঙ্গতি, আশ্রয়ন প্রকল্প সহ বিভিন্ন কাজে অনিময় ও নানা সমস্যা রয়েছে। এখনো এই উপজেলায় অধিকাংশ হাওরের ফসল রক্ষা বাধেঁর কাজ সম্পন্ন হয়নি, কিছি বাঁধ ধসে গেছে কৃষকরা তাদের সোনালী ফসল ঘরে তোলা নিয়ে শংঙ্কায় দিন কাটাচ্ছেন। অতীতে কোন ইউএনও জনপ্রতিনিধিদের সাথে এমন আচরন করেননি। যা তিনি করছেন নিজের নির্বাহী ক্ষমতা দেখিয়েই করছেন বলে তারা জানন। বেহেলী নতুন বাজার স্থাপনে প্রতি ভিট বরাদ্ধের বিপরিতে টাকা লেনদেনের কথা শুনেছেন বলে জানান জনপ্রতিনিধিরা। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাসুদ রানা তার উপর জনপ্রতিনিধিদের আনিত অভিযোগ মিথ্যা জানিয়ে মোবাইল ফোনে বলেন, তাদের অযৌক্তিক দাবী আদায় না করার তারা মিথ্যা অভিযোগ করছে। সাংবাদিকদের ব্যবহার করে প্রচার করতে চাচ্ছে। আমিতো বদলী। তিনি বলেন, জনপ্রতিনিধি অনেকেই পরপর কয়েকটি জাতীয় প্রোগ্রামে উপস্থিত থাকেননি। দুই চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতেও পত্র দিয়েছেন বলে জানান ইউএনও মো: মাসুদ রানা।


Spread the love
এই বিভাগের আরো খবর

ওয়েবসাইট ডিজাইন প্রযুক্তি সহায়তায়: জুনায়েদ চৌধুরী জীবন

© All rights reserved © সুনামগঞ্জ প্রতিদিন
Theme Customized BY LatestNews
error: Content is protected !!